নিউজিল্যান্ড ভ্রমণে খরচ বাঁচানোর অভিনব কিছু উপায়

ঘুরতে আমরা কমবেশি সবাই পছন্দ করি। কেউ কোনো জায়গা থেকে ঘুরে আসলে তার থেকে সেই ভ্রমণ সম্পর্কে জানতে চাই, আরো জানতে চাই কেমন খরচ হয়েছে সেখানে ঘুরে ফিরে আসতে। কেউ কেউ একই জায়গায় অনেক বেশি খরচে ঘুরে আসে, কেউ আবার খুব অল্প খরচে একই পরিমাণ ঘোরাঘুরি করে আসে। ঘুরতে যাওয়ার ক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময় আমরা আগে গিয়েছে এমন লোককে সাথে নিতে বেশি পছন্দ করি কারণ সে জানে কোথায় কী আছে, আর খরচের হিসেবটাও তার থেকে ভাল কেউ জানবে না।

তবে সাধারণত এমন কাউকে পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম থাকে। সেক্ষেত্রে ভ্রমণের কী হবে? তখন আমরা ইন্টারনেটের তথ্যসমৃদ্ধ জগতে একটা ছোট্ট খোঁজ চালাই আগে সেখানে গিয়েছেন এমন একজনের ভ্রমণ অভিজ্ঞতা পেতে। ভ্রমণের ক্ষেত্রে পরিকল্পনা করা এবং সে মোতাবেক পুরো ভ্রমণটি সম্পন্ন করা অতি মাত্রায় জরুরী। সেজন্য মোট বাজেটের চেয়ে কিছু টাকা আমরা জরুরী প্রয়োজনের জন্য ঘুরতে বের হলে সঙ্গে রাখি।

তবে কিছু বিশেষ দেশে কিছু বিশেষ উপায় মেনে চললে সে দেশে ঘুরে বেড়ানোর খরচ কমে যায় অনেকটাই। আমাদের আজকের আয়োজন তেমনি কিছু অভিনব উপায় নিয়ে যা নিউজিল্যান্ড ভ্রমণে আপনার খরচকে সামর্থ্যের ভেতর নিয়ে আসবে আর ঘুরেও বেশ মজা পাবেন দেশটিতে। চলুন তাহলে দেখে আসি কী এমন করলে নিউজিল্যান্ড ঘুরতে লাগবে সবচেয়ে কম টাকা।

১. উড়োজাহাজের টিকেটের জন্য ব্যবহার করুন “গ্র্যাব এ সীট”

ছবিঃ cheapoguides.com

“গ্র্যাব এ সীট” নিউজিল্যান্ডের একটি উড়োজাহাজ টিকেটিং সংস্থা যারা অত্যন্ত ন্যায্য দামে নিউজিল্যান্ডের ডোমেস্টিক ফ্লাইটগুলোর টিকেট বিক্রি করে থাকে। এই সংস্থার অন্তর্ভুক্ত বিমানগুলো একটু সাধারণ সময়ের চেয়ে ব্যতিক্রমে আকাশে ওড়ে। ঘুমের রুটিন পরিবর্তন করে যদি সস্তায় নিউজিল্যান্ডের ভেতরে কোথাও যাওয়ার ইচ্ছে থাকে তবে এই ফ্লাইটগুলো হতে পারে আপনার প্রথম পছন্দ।

২. ব্যবহার করুন “ন্যাকেড বাস”

ছবিঃ blogspot.com

ন্যাকেড বাস নিউজিল্যান্ডের একটি বাজেট বাস সার্ভিস যারা অত্যন্ত কম দামে আন্তঃশহুরে বাসের টিকেট বিক্রি করে থাকে। এই সার্ভিসের বাসগুলো নিউজিল্যান্ডের ভেতরে প্রায় ৩০০টি শহরে যায় যার ভাড়া শুরু হয় মাত্র এক ডলার থেকে। তবে এই বাসে ওঠার আগে জেনে নিতে হবে আপনার গন্তব্যে বাসখানা যাবে কিনা। নিউজিল্যান্ডের উত্তর দ্বীপের জন্য আপনি ইন্টারসিটি বাস সার্ভিস বা মানাবাসও ব্যবহার করতে পারেন।

৩. রাত কাটান নিউজিল্যান্ডের হোস্টেলগুলোতে

ছবিঃ backpackerguide.nz

নিউজিল্যান্ডের মতো সুন্দর দেশে বেশিরভাগ সময় আপনি বাইরেই কাটাবেন। তাই রাতে শুধু ঘুমানোর জন্য মোটামুটি মানের হোস্টেল ঠিক করুন। নিউজিল্যান্ডের প্রতিটি শহরেই আছে বাজেট ট্রাভেলারদের জন্য একটু কম টাকার প্রচুর হোস্টেল। এসব হোস্টেলের ভাড়া হয়ে থাকে সাধারণত ২০-২৫ নিউজিল্যান্ড ডলার মানে প্রায় ১,২০০-১,৫০০ টাকার মতো।

৪. ব্যবহার করুন এয়ারবিএনবি

ছবিঃ stuff.co.nz

হোটেলগুলোর এক অভিনব বিকল্প হলো এয়ারবিএনবি । ২০০৮ সালে দুজন ডিজাইনার তাদের বাসার যে জায়গাটা খালি আছে তা তিনজন ট্রাভেলারকে থাকার জন্য ভাড়ায় দেন, সেখান থেকেই এয়ারবিএনবি’র যাত্রা শুরু। যার বাসায় আপনি উঠবেন তাকে বলা হয় “হোস্ট” আর আপনি হলেন ট্রাভেলার।

যেকোনো ট্রাভেলার নিউজিল্যান্ডে এয়ারবিএনবি ব্যবহার করে অনেক কম দামে বাসা-বাড়ির স্বাদ পেতে পারেন অনায়াসেই। বাংলাদেশে এটি এখনো জনপ্রিয়তা না পেলেও নিউজিল্যান্ডে এটি বেশ জনপ্রিয়।

৫. প্রতিদিনকার অফার দেখুন অনলাইনে

ছবিঃ freerangestock.com

পুরো নিউজিল্যান্ড জুড়ে ট্রাভেলারদের জন্য প্রতিদিন থাকা এবং খাবারের দামে বিভিন্ন আকর্ষণীয় অফার দিয়ে থাকে। অনলাইনে একটু ঘাঁটাঘাটি করলেই দেখবেন কম খরচে থাকতেও পারছেন আর খাওয়া-দাওয়াও হচ্ছে ভরপুর। এরকম কিছু ওয়েবসাইট হচ্ছে Bookme, Grabone, Dailydo, Treatme, Fisttable ডট কম।

৬. নিউজিল্যান্ড ঘুরে বেড়ান গাইড ছাড়াই

ছবিঃ trip-experiences.com

নিউজিল্যান্ড এমন এক দেশ যেখানে এর অপার সৌন্দর্যের শতকরা ১০০ ভাগই বিনামূল্যে উপভোগ করা যাবে। তাই গাইডের চিন্তা বাদ দিয়ে নিজেই বেরিয়ে পড়ুন নিউজিল্যান্ডের শহুরে কোনো রাস্তায়।

কোনো শহরে ঘুরতে হলে প্রথমেই সেখানকার iSite (ভ্রমণ সংক্রান্ত অনুসন্ধানকেন্দ্র) এ চলে যান। সেখানকার স্টাফ পুরো শহরের কোথায় কী ঘুরে বেড়ানোর আছে আর সেগুলোতে কীভাবে যেতে হয় তার সবচেয়ে কম খরচের উপায়টি বলে দিবে। এভাবে নিউজিল্যান্ড ঘুরতে গাইডের পেছনে খরচ করা টাকাটা বেচে যাবে আপনার।

৭. ভ্রমণের সময় ট্যাপের পানি পান করুন

ছবিঃ radionz.co.nz

নিউজিল্যান্ডের প্রতিটি শহরে পান করার জন্য সার্বজনীন যে পানি সরবরাহ করা হয় তা শতভাগ শুদ্ধ পানি। তাই ভ্রমণকালে সাথে একটি প্লাস্টিকের বোতল রাখুন নিজের সাথে আর যেখানেই পানি পাবেন ভরে নেবেন বোতলটি।

খেতে বসলে চেষ্টা করবেন যাতে আপনার বিল সাধ্যের মধ্যে আসে। এজন্য মিনারেল পানির বদলে ওয়েটারকে একটা পানির জগের কথা বলতে ভুল করবেন না। তারা খুশি হয়েই ফ্রিতে পানি সরবরাহ করতে ভালোবাসে।

৮. খাবার-দাবার কিনুন সুপারমার্কেট থেকে

ছবিঃ cdn.newzealandnow.govt.nz

রেস্টুরেন্টে খাওয়া-দাওয়া করার চেয়ে নিউজিল্যান্ডে বাজার-সদাই করে খাওয়ার অভিজ্ঞতা কেমন লাগবে? আপনি যদি থাকার জন্য হোস্টেল বেছে নিয়ে থাকেন তবে খুশির খবর হলো হোস্টেলগুলোতে আপনার ব্যবহারের জন্য ছোটখাট রান্নাঘরও থাকে। আর নিউজিল্যান্ডে সবচেয়ে সস্তায় বাজার করার জন্য বিখ্যাত হলো এর বিভিন্ন সুপারমার্কেট যেমন পাক এন সেইভ, কাউন্টডাউন এবং দ্য নিউ ওয়ার্ল্ড।

৯. ঘুরতে বের হোন অফ-সিজনে

ছবিঃ s26626.pcdn.co

গরম এবং শীত দুই সময়েই নিউজিল্যান্ডে পর্যটক থাকে প্রচুর। গরমকাল যেখানে অ্যাডভেঞ্চার কর্মকাণ্ড আর নগর ভ্রমণে কেটে যায়, শীতকালে পর্যটকরা সেখানে লক্ষ্য নিয়ে আসে স্কেটিং করার। একটু খেয়াল করলে দেখা যাবে ফেব্রুয়ারি থেকে মে এবং আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসগুলোতে অন্য সময়ের তুলনায় পর্যটক একটু কম থাকে। তাই সবকিছুর দামও একটু কম থাকে। কম খরচে ঘুরে আসতে চাইলে ভ্রমণের সময় ঠিক করা উচিত এই মাসগুলোতেই।

১০. মোবাইলের ইন্টারনেট খরচে সাশ্রয়ী হোন

ছবিঃ techadvisor.co.uk

নিউজিল্যান্ডে অন্যান্য দেশের তুলনায় মোবাইল ইন্টারনেটের দাম একটু বেশি। সব জায়গায় ওয়াই-ফাই এর সুবিধা না থাকায় মোবাইলের ইন্টারনেট ব্যবহারে হতে হবে সাশ্রয়ী। লাইব্রেরী, ক্যাফে, সাধারণ অনুসন্ধান কেন্দ্রগুলোতে ওয়াই-ফাই থাকলেও বেশিরভাগ জায়গায়ই নেই এর সুবিধা। নিউজিল্যান্ডের স্কিনি মোবাইল নামক প্রোভাইডার একটু কম খরচে ইন্টারনেট সুবিধা দিয়ে থাকে। তাই এই প্রোভাইডার ব্যবহারই হবে সাশ্রয়ী সিদ্ধান্ত।

ফিচার ইমেজ- wp.com

var loaded = false; var loadFB = function() { if (loaded) return; loaded = true; (function (d, s, id) { var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0]; if (d.getElementById(id)) return; js = d.createElement(s); js.id = id; js.src = "http://connect.facebook.net/en_US/sdk.js#xfbml=1&version=v3.0"; fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs); }(document, 'script', 'facebook-jssdk')); }; setTimeout(loadFB, 0); document.body.addEventListener('bimberLoadFbSdk', loadFB); })();

Must Read

বাংলার প্রাচীন রাজধানী গৌড়ের খানিক ইতিহাস ও দর্শনীয় স্থানগুলো

বর্তমানে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী অঞ্চলে অবস্থিত গৌড় নগর ভারতীয় উপমহাদেশের মধ্যযুগীয় অন্যতম বৃহৎ নগরী। এটি বাংলার প্রাচীন রাজধানী। আনুমানিক ১৪৫০ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১৫৬৫ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত...

সুন্দরবনের নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও প্রয়োজনীয় তথ্যসমূহ

বাংলাদেশের মধ্যে যে কয়েকটি স্থান ইউনেস্কো কর্তৃক বিশ্ব ঐতিহ্য তালিকায় স্থান করে নিয়েছে তার মধ্যে সুন্দরবন অন্যতম। এখানে সুন্দরী গাছের আবাসস্থল রয়েছে এবং এটি...

দ্বিতীয় দিন-দুপুরের আগে পৌঁছাতে হবে কালাপোখরি

খুব ভোরে ঘুম ভাঙল। ওয়াশরুমে গেলাম ফ্রেশ হতে, বসে আছি কিছুক্ষণ। তখনো ভোর হয়নি, হঠাৎ বামে তাকালাম। আমি যা দেখলাম পরের ৫ মিনিট আমি...